সেক্যুলারিজম, ধর্ম ও রাষ্ট্র

সেক্যুলারিজম, ধর্ম (বিশেষত ইসলাম) ও রাষ্ট্র – এই তিনটার পারস্পরিক সম্পর্ক নিয়ে দেশে প্রচুর কথাবার্তা হচ্ছে। সেক্যুলার এবং ইসলামপন্থী – উভয় ধারার অবস্থানই এ ক্ষেত্রে মোটাদাগে দুই প্রান্তের। সেক্যুলারপন্থীরা না ইসলামকে বুঝার চেষ্টা করেছে, না ইসলামপন্থীরা সেক্যুলারিজমকে বুঝার চেষ্টা করেছে। আবার স্ব স্ব আদর্শের কোর কনসেপ্ট নিয়েও তাদের নিজেদের মধ্যে অস্পষ্টতা আছে।

আরব বসন্তের পাইওনিয়ার তিউনিশিয়ায় ২০১১ সালে বিপ্লবের মাধ্যমে স্বৈরাচার উৎখাত হওয়ার পর একই বিতর্ক দেখা দেয়। সেখানে বিপ্লবের নেতৃত্বে ছিল ইসলামপন্থী আন নাহদা আন্দোলন। সেই বিতর্কের প্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক একটি থিংকট্যাংক এক সিম্পোজিয়ামের আয়োজন করে। সেখানে আন নাহদা আন্দোলনের নেতা ও চিন্তাবিদ ড. রশিদ ঘানুশী এক ঐতিহাসিক ও যুগান্তকারী বক্তব্য প্রদান করেন। তিনি দেখান যে, সেক্যুলারিজমের যেমন একাট্টা কোনো চেহারা নেই, ইসলামেরও তেমনি। স্থান-কাল ভেদে এগুলোর ভিন্ন ভিন্ন ব্যাখ্যা রয়েেছে।

লেখাটি পড়তে ক্লিক করুন – সেক্যুলারিজম এবং ধর্ম ও রাষ্ট্রের সম্পর্ক

ফেসবুক লিংক

আপনার মন্তব্য লিখুন

ইমেইল এড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত ঘরগুলো পূরণ করা আবশ্যক।